Horn Meal Fertilizer বা শিং কুচি সার গাছের জন্য কতটা প্রয়োজনীয়

Last updated on July 12th, 2024 at 11:40 pm

শিং কুচি সার আধুনিক কৃষিচাষ অথবা বাগানের জন্য উপলব্ধ অগণিত জৈব উপাদন যার মধ্যে হাঁড়গুড়ো সার একটি উল্লেখযোগ্য এবং পরিবেশগত ভাবে বন্ধুত্বপূর্ণ তেমনি উপকারী বিকল্প হিসাবে দাঁড়িয়েছে। আমরা ছাদ বাগানে সবাই বিভিন্ন রকম সার ব্যবহার করি। শিং কুচি প্রাকৃতিক পণ্য নাইট্রোজেন সমৃদ্ধ সার এবং এটি ধীরে ধীরে মাটিতে মিশে যায়। গাছের প্রয়োজনীয় প্রধান উপাদান গুলির মধ্য NPK অন্যতম, তা আমরা সকলেই কম বেশি জানি ।

শিং কুচি সার গাছকে নাইট্রোজেন সমৃদ্ধ সরবরাহ করে থাকে যা শিকড়ের বৃদ্ধি বিস্তাররে সহায়তা করে থাকে। গাছের পর্যাপ্ত পরিমাণ পাতা, ডালপালা ও কান্ড উৎপাদনে সাহায্য করে থাকে। শিং কুচি ক্লোরোফিল উৎপাদনের মাধ্যমে গাছপালাকে গাঢ় সবুজ বর্ণ প্রদান করে থাকে। কুশি উৎপাদনসহ ফলের আকার বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। উদ্ভিদের শর্করা ও প্রোটিন উৎপাদনে সহায়তা করে থাকে। এছাড়াও গাছের অন্যান্য সব আবশ্যক উপাদানের পরিশোষণের হার বাড়িয়ে থাকে।এটি উদ্ভিদের জন্য মোটামুটি নাইট্রোজেন খাবার যা প্রচুর পরিমাণে পাতা বিশেষত শাকসবজী উৎপাদন করে। পাতার প্রোটিন তৈরি করতে নাইট্রোজেনের প্রয়োজন। সুতরাং যে গাছগুলিতে প্রচুর পরিমাণে সবুজ পাতা থাকে তারা শিং কুচি থেকে উপকৃত হয়।

Horn Meal Fertilizer বা শিং কুচি সার গাছের জন্য কতটা প্রয়োজনীয়

শিং কুচি গবাদি এবং অন্যান্য গবাদি পশুর শিং থেকে উৎপন্ন হয়। প্রক্রিয়াটি শিং সংগ্রহের মাধ্যমে শুরু হয়, যা প্রায়শই মাংস প্রক্রিয়াকরণ শিল্পের একটি উপজাত। কোন অবশিষ্ট জৈব পদার্থ অপসারণ করার জন্য এই শিংগুলি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরিষ্কার করা হয়। একবার পরিষ্কার করা হলে, এগুলি শুকিয়ে গেলে তা সূক্ষ্ম গুঁড়োতে ভুনা হয়। নাইট্রোজেন সমৃদ্ধ এই পাউডারটি আমরা শিং কুচি, Horn meal বা হর্ন পাউডার হিসাবে পরিচিত। নাইট্রোজেন সমৃদ্ধ শিং কুচি খাবার শাকসবজী এবং ফুল বাগানের জন্য ভীষন ভাবে কার্যকারী তেমনি ফসফরাস সমৃদ্ধ
হাড়ের গুঁড়ো যেটা গাছের ফুল বা ফলকে বড় হতে সাহায্য করে।

Horn Meal Fertilizer বা শিং কুচি সার
Horn Meal Fertilizer বা শিং কুচি সার

হর্ন মিলের উৎপাদন পুনর্ব্যবহার এবং বর্জ্য হ্রাসের একটি প্রমাণ। অন্যথায় নষ্ট হয়ে যাবে এমন পশুর উপজাত ব্যবহার করে, শিং খাবার উৎপাদন আরও টেকসই কৃষি ব্যবস্থায় অবদান রাখে। এই প্রক্রিয়াটি শুধুমাত্র বর্জ্যই কমায় না বরং জৈব সার চাওয়া কৃষকদের জন্য একটি মূল্যবান সম্পদও প্রদান করে।

[আরও পড়ুন: অনুখাদ্য কি – গাছের জীবন ধারণের জন্য অনুখাদ্যের ভূমিকা]

শিং কুচি সার ব্যবহারের কারণ:

  • শিং কুচি সারমাটিতে নাইট্রোজেন এবং অল্প মাত্রায় ফসফরাস সরবরাহ করে থাকে।
  • গাছের বৃদ্ধি থমকে গেলে, সবুজ পাতা তৈরী না হলে বুঝতে হবে মাটিতে নাইট্রোজেনের অভাব আছে,মত অবস্থায় পরিমান মত শিং কুচি প্রয়োগের ফলে গাছে নাইট্রোজেনের ঘাটতি জনিত সমস্যা দুর হয়।
  • স্বাস্থ্যকর কোষ গঠন এবং সবুজ সতেজ গাছের জন্য নাইট্রোজেন অতি প্রয়োজনীয় উপাদান যা শিং কুচি এবং নাইট্রোজে সমৃদ্ধ রাসায়নিক সার সরবহার করে ।
  • এটি শুধুমাত্র নাইট্রোজেন যুক্ত করে না বরং মাটির জৈব পদার্থের পরিমাণও উন্নত করে। এই জৈব পদার্থ মাটির গঠন বাড়ায়, জল ধারণ বাড়ায় এবং উপকারী জীবাণু ক্রিয়াকলাপের প্রচার করে। স্বাস্থ্যকর মাটি আরও শক্তিশালী উদ্ভিদের বৃদ্ধি এবং কীটপতঙ্গ এবং রোগের বিরুদ্ধে বৃহত্তর স্থিতিস্থাপকতার দিকে পরিচালিত করে।
  • গাছের মূলের বৃদ্ধিকে তরান্বিত করে এবং মাটির গঠন উন্নত করে।
  • গবেষণায় দেখা গেছে শিং কুচি গাছের বৃদ্ধি এবং ফলনের উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে। নাইট্রোজেনের স্থির সরবরাহ গাছের বৃদ্ধিকে উৎসাহিত করে, ফলস্বরূপ স্বাস্থ্যকর এবং আরও বেশি উৎপাদনশীল উদ্ভিদ তৈরীতে সাহায্য করে। শাকসবজি, শস্য এবং ফলের গাছের মতো ফসলের জন্য, এটি উচ্চতর ফলন এবং উন্নত মানের উৎপাদনে অনুবাদ করতে পারে।
  • শিং কুচি সার একটি চমৎকার উদ্ভিদ বৃদ্ধির বুস্টার। এটি গাছের বৃদ্ধি, মাটির গঠন এবং কাঠামো বাড়ানোর জন্য সেরা, এটি মাটিতে অনুজীবীয় ক্রিয়াকলাপ বাড়ায়। শিং কুচি জৈব সার গাছের সব পর্যায়ে ব্যবহার করা যায়। বৃদ্ধি এবং কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই।
  • গাছে শিং কুচি সার ব্যাবহার করলেও কুকুর বা বিড়ালের মতো কোনো প্রাণীর দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
  • গাছের পূর্ণ বৃদ্ধির পাশাপাশি ফলন বৃদ্ধি করতে, ফলের আকার বৃদ্ধিতে, ফুল ও ফল বৃদ্ধি করতে,স্বাস্থ্যকর কোষ গঠন করতে সর্বক্ষেত্রে সময় মতো শিং কুচি ব্যবহার করতে হবে।
  • অপরদিকে ফসফরাসের অভাব দেখা দিলে গাছে ফুলের ও ফলের সংখ্যা কম হয় এবং আকারে ছোট হয় এবং সময়মত গাছে ফুল ফল আসে না।
  • শিং কুচি সার পরিবেশ বান্ধব কারণ এটি সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপাদান থেকে তৈরি করা হয়ে থাকে।
  • গাছ যে সকল অত্যাবশ্যকীয় বিভিন্ন ম্যাক্রে ও মাইক্রো খাদ্য উপাদান মাটি থেকে পায় তা শিং কুচি এবং হাড়ের গুড়ো থেকে গাছ সহজেই পেয়ে থাকে।
  • যে সকল গাছ দীর্ঘদিন টবে থাকে সে সব গাছের জন্য শিং কুচি এবং হাড়ের গুড়ো অত্যন্ত প্রয়োজনীয় উপাদান।

শিং কুচি সার ব্যাবহারের নিয়ম:

  • মাটি প্রস্তুতের সময়ে অন্যান্য উপাদানের সাথে হাঁড়ের গুড়ো, নিমখোল এবং শিং কুচি মিশিয়ে মাটি প্রস্তুত করলে গাছের বৃদ্ধি ভাল হয়।
  • হাঁড়ের গুড়োর মত, শিং কুচি ৬-৮ ইঞ্চটবের জন্য অধা মুঠো এবং ১২ ইঞ্চ টবের মাটিতে মাটিতে এক মুঠো ।
  • গাছের গোড়ার মাটি এক থেকে দেড় ইঞ্চি খোঁড়ার পর টবের সাইড দিয়ে পরিমাণ মত হাড় গুড়ো ছিটিয়ে দিতে হবে তারপর কোন কিছুর দ্বারা শিং কুচি এবং মাটি মিশিয়ে, পর্যাপ্ত পরিমাণে জল প্রয়োগ করতে হবে।
  • শিং কুচি গুড়া মাটির সাথে মিশতে ২৫-৪০ দিন সময় নেই, মিশে যাওয়ার গাছ ধীরে ধীরে তা গ্রহণ করতে থাকে।

প্রিয় পাঠক, এই প্রতিবেদনটি পঠন করবার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। আপনার মতো পাঠকের সহযোগিতা “ক্রিয়েটিভিটি গার্ডেনিং” সর্বদা কাম্য করে। গাছই আমাদের একমাত্র সম্পদ যা আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সুরক্ষিত করতে পারে, বাঁচিয়ে রাখতে পারে। নিঃস্বার্থে গাছ ভালবাসুন, সকলকে গাছ লাগাতে উৎসাহিত করুন।

আপনাদের যদি এই বিষয়ে কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সের মাধ্যমে আমাকে জানাতে পারেন। সেগুলোর সমাধান করাবার আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করব। আপনার মূল্যবান রেটিং দিয়ে উৎসাহিত করুন, সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ, সবাই খুব ভালো থেকো নমস্কার।

আপনার মূল্যবান রেটিং দিয়ে উৎসাহিত করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *